ঢাকা, ১৫ নভেম্বর, ২০১৯ ০১:৩৮:৩৭ || ৩০ কার্তিক ১৪২৬
Advertisement
৫১৪

খেলাপি ১০ গেটওয়ের কল টার্মিনেশন বন্ধ

স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট

প্রকাশিত: ২৬ সেপ্টেম্বর ২০১৩   আপডেট: ১১ মে ২০১৪


ঢাকা: বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশন (বিটিআরসি) খেলাপি ১০টি ইন্টারন্যাশনাল গেটওয়ের (আইজিডব্লিউ) কল টার্মিনেশন বন্ধ করে দিয়েছে।

নির্ধারিত সময়ের শেষ দিনেও সরকারি রাজস্বের বকেয়া পরিশোধ না করায় এ সিদ্ধান্ত নিয়েছে নিয়ন্ত্রক সংস্থা বিটিআরসি। ১৫টি খেলাপি আইজিডব্লিউ প্রতিষ্ঠানের মধ্যে ৫টি প্রতিষ্ঠান বুধবার  সরকারি পাওনা পরিশোধ করে। বাকিরা পরিশোধে ব্যর্থ হওয়ায় ওই দিনই তাদের কল টার্মিনেশন বন্ধ করে দেওয়া হয়। বিটিআরসি খেলাপি  ১০টি প্রতিষ্ঠানের কল টার্মিনেশন স্থগিত করে চিঠিও দিয়েছে।

বিটিআরসি সূত্রে জানা গেছে, ১০টি প্রতিষ্ঠানের কল টার্মিনেশন বন্ধ করলেও এসব প্রতিষ্ঠান টাকা দিলে পুনরায় সবকিছু ঠিক করে দেওয়া হবে।

কল টারমিনেশন বন্ধ করে দেওয়া প্রতিষ্ঠানগুলো হলো-  অ্যাপল নেটওয়ার্ক লিমিটেড,  র‌্যাংকসটেল,  ভিসনটেল,  মোস ফাইভটেল লিমিটেড, এসএম কমিউনিকেশন,  ভেনাস টেলিকম,  রাতুল টেলিকম,  সিগমা ইঞ্জিনিয়ার্স লিমিটেড,  ফাস্ট কমিউনিকেশন লিমিটেড  ও ওয়ান এশিয়া  অ্যালায়েন্স।  

এই ১০টি প্রতিষ্ঠানের মধ্যে দু’টির মালিক সরকারের দই শীর্ষ নেতার পরিবারের। একটি মহাজোটের শরিক জাতীয় পার্টির একজন প্রেসিডিয়াম সদস্যদের। তাদের টার্মিনেশন গত মাসেও একবার বন্ধ করা দেওয়া হয়েছিল। পরবর্তীতে রাজনৈতিক চাপে বিটিআরসি তা খুলে দিতে বাধ্য হয়।  

গত বছর সরকার গণহারে আইজিডব্লিউর লাইসেন্স দিয়েছিল। এরপর  এসব প্রতিষ্ঠান  সরকারের ৫১ দশমিক ৭৫ শতাংশ  রাজস্ব দিতে বরাবরই অনিহা প্রকাশ করে আসছে। প্রতিষ্ঠানগুলো উল্টো  সরকার নির্ধারিত কল টার্মিনেশন চার্জ তিন সেন্ট থেকে দেড় সেন্ট করার জন্য কয়েক মাস ধরে চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে।

তবে ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রণালয় সূত্রে জানা গেছে, তারা মিনিট প্রতি কল টার্মিনেশন চার্জ দেড় সেন্টে নামিয়ে আনার বিটিআরসির প্রস্তাব আমলে নিচ্ছে না।  

বিগত তত্ত্বাবধায়ক সরকার আমলে আইজিডব্লিউর লাইসেন্স বেসরকারি খাতে দেওয়া হয়। এর আগে সরকারি প্রতিষ্ঠান বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ কোম্পানি লিমিটেড এ কাজটি এককভাবে করতো।  

বাংলাদেশ সময়: ২০৪৬ ঘন্টা, সেপ্টেম্বর ২৬, ২০১৩